অস্বচ্ছল পরিবারের মাঝে ঈদ সামগ্রী বিতরণ করলেন ইসলামী যুব আন্দোলন

রিপোর্ট নারায়ণগঞ্জ ২৪ : ইসলামী যুব আন্দোলন, নারায়ণগঞ্জ মহানগর এর উদ্যোগে নারায়ণগঞ্জ মহানগর নিয়ন্ত্রীত শহর শাখার আওতাধীন নাসিক ১৪নং ওয়ার্ড এলাকায় জন্য পবিত্র ঈদ-উল-ফিতর উপলক্ষে অস্বচ্ছল পরিবারের মাঝে ঈদ সামগ্রী বিতরণ অনুষ্ঠিত হয়।

বুধবার (১২ মে) সকাল ১০ টায় ইসলামী যুব আন্দোলন, নারায়ণগঞ্জ মহানগর নিয়ন্ত্রীত শহর শাখার আওতাধীন নাসিক ১৪নং ওয়াড শাখা সভাপতি হুসাইন মুহাম্মাদ আল আমিন এর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মুহাঃ রফিকুল ইসলাম এর সঞ্চালনায় পবিত্র ঈদ-উল-ফিতর উপলক্ষে অস্বচ্ছল পরিবারের মাঝে ঈদ সামগ্রী বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পীর সাহেব চরমোনাই মনোনীত ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ এর নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন এর সম্ভাব্য মেয়র প্রার্থী মুফতি মাসুম বিল্লাহ। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, নগর সাধারণ সম্পাদক মোঃ আবুল বাশার খান, শহর শাখার আইন সম্পাদক মোঃ ইউসুব।

প্রধান অতিথি তার বক্তব্যে বলেন, বৈশি^ক মহামারী কোভিড ১৯ এর কারণে সরকার দেশে চলতি বছরের এপ্রিল ৫ তারিখ প্রথম পর্যায়ে লকডাউন ঘোষনা করেন। পরবর্তীতে এর মেয়াদ বৃদ্ধি করে পর্যায়ক্রমে ১৬ মে পর্যন্ত করা হয়। সারা বিশ^ যেখানে লকডাউন মুক্ত সেখানে বর্তমান সরকার দেশে প্রহসনের লকডাউনের মাধ্যমে জনগণকে অর্থনৈতিকভাবে পন্ড করার খেলায় মেতে উঠেছে, যা ইতিমধ্যে জনগণ প্রত্যখান করেছেন। তথাকথিত লকডাউন দিয়ে সরকার দেশের ওলামায়েকেরামকে হয়রানি, মসজিদ ও মাদ্রাসাকে বন্ধ করার প্রচেষ্টায় মনোনিবেশ করছেন। হাট-বাজার, শপিংমল, গার্মেন্টস, কলকারখানা যেখানে রীতিমত চালু রয়েছে সেখানে লকডাউনের নামে জনগণের সাথে সরকার তামাশা শুরু করেছে। এই লকডাউনের কারণে আজ সাধারণ জনগণ তাদের নিত্যপ্রয়োজনীয় খাদ্য সামগ্রীর যোগান দিতে হিমশিম খাচ্ছে। তারপরে পবিত্র মাহে রমজান চলমান। চলমান লকডাউনে দেশের মুক্তি প্রত্যাশিত দিশেহারা মানুষের মুক্তির আর্তি, তাই তীব্র থেকে তীব্রতর হচ্ছে প্রতিনিয়তই। ২১ শতকের নব্য জাহিলিয়াতের তোড়ে ভেঙ্গে যাচ্ছে সামাজিক বন্ধন। উপেক্ষিত হচ্ছে ধর্মীয় মূল্যবোধ। দেশে দিনদিন খুন, ধর্ষণ ও সন্ত্রাসে জড়িয়ে পরে দেশকে এক অনিশ্চিত গন্তব্যের দিকে নিয়ে যাচ্ছে। তিনি বলেন, বর্তমান সরকার সন্ত্রাস, দুর্নীতি ও বিদেশে টাকার পাচারকারীদের নিয়ন্ত্রণ করতে সম্পূর্ণরূপে ব্যর্থ হয়েছে। বাড়ছে অন্যায়, অবিচার, জুলুম, নির্যাতন, গুম ও বিচার বহির্ভূত হত্যা। হাজার বছরের লালিত সভ্যতা ও ঐতিহ্যের পায়ে কুঠারাঘাত হেনে তৈরি হচ্ছে ভারসাম্যহীন এক যুব সমাজ। আর এই যুব সমাজকে ধ্বংসের দ্বারপ্রান্ত থেকে তুলে আনা আপনাদেরই কাজ। এমতাবস্থায় যুবসমাজকে নৈতিকভাবে চরিত্রবান করে গড়ে তুলে একটি আদর্শ সমাজ বিনির্মাণের জন্য দেশের প্রতিটি স্তরে ইসলামী যুব আন্দোলনকে সক্রিয় ভূমিকা পালন করতে হবে।

তিনি আ্ররো বলেন, নারায়ণগঞ্জ সারা দেশের মধ্যে একটি জনবহুল ও গুরুত্বপূর্ণ নগরী। যেখানে সারা দেশের মানুষ দু’মুঠো খাদ্যের সন্ধানে হাজারো শ্রমিক কাজ করে। তার আজ অসহায় পড়ায় ইসলামী যুব আন্দোলনের এই মানবিক উদ্যোগ। কেননা ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ ইসলামী হুমুকত প্রতিষ্ঠার জন্য রাজনীতি করে, আর ইসলামী হুকুমত প্রতিষ্ঠা হলেই জনগণ ফিরে পাবে তাদের মুক্তির ঠিকানা, তারই প্রমাণ আজকের এই অনুষ্ঠান।
অনুষ্ঠানে ইসলামী যুব আন্দোলন, নারায়ণগঞ্জ মহানগর এর অন্যান্য নেতৃবৃন্দগণ উপস্থিত ছিলেন।