ধর্ষণের সাজা মৃত্যুদন্ডসহ ৭ দফা দাবিতে সাধারন শিক্ষার্থীদের সড়ক অবরোধ

রিপোর্ট নারায়ণগঞ্জ ২৪ : নোয়াখালীর বেগমগঞ্জে নারীকে বিবস্ত্র করে নির্যাতন ও সারাদেশে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের প্রতিবাদে নারায়ণগঞ্জ শহরের চাষাড়ায় ৭ দফা দাবিতে সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করেছে সাধারন শিক্ষার্থীরা।

বুধবার (৭ অক্টোবর) সকাল ১১টা থেকে বেলা সাড়ে ১২টা পর্যন্ত শহরের চাষাড়া বিজয়স্তস্তম্বের সম্মুখে সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ প্রদর্শন করে সাধারণ শিক্ষার্থীরা। এ সময় নারী আন্দোলন কর্মীদের হাতে বাঁশের লাঠি দেখতে পাওয়া যায়।

এর আগে সারাদেশে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ ও নারী নির্যাতনের প্রতিবাদে নারায়ণগঞ্জ প্রীতিলতা বিগ্রেড গণজমায়েতের আহ্বান করে। তাদের আহ্বানে সাড়া দিয়ে সকাল ১০টা থেকে নারায়ণগঞ্জ কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে জমায়েত হতে শুরু করে নারায়ণগঞ্জ মহিলা কলেজ, নারায়ণগঞ্জ কলেজ, সরকারী তোলারাম কলেজ, মাহবুবুর রহমান মোল্লা কলেজ, রণদা প্রসাদ সাহা বিশ্ববিদ্যালয়, মিসির আলী কলেজ সহ বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা।

সকাল ১১টায় শহীদ মিনার থেকে একটি বিক্ষোভ মিছিল করে শিক্ষার্থীরা। মিছিলটি নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাব ঘুড়ে পূষরায় চাষাড়া বিজয়স্তম্বের সামনে এসে শেষ হয়। পরে সেখানেই সড়কে বসে আন্দোলন শুরু করে তারা। এ সময় শিক্ষার্থীরা ধর্ষকদের বিরুদ্ধে লড়াই হবে এক সাথে,আমার বোন ধর্ষিতা কেন? প্রশাসন জবাব চাই, ইত্যাদি শ্লোগান দিতে থাকে শিক্ষার্থীরা।

এ সময় শিক্ষার্থীরা তাদের ৭ দফা দাবি উল্লেখ করে বলেন, ধর্ষণ আইন পুন:বিবেচনার মাধ্যমে সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদন্ড নিশ্চিত করা, ধর্ষণজনিত ঘটনা বা অপরাধের জন্য আলাদা দ্রুত বিচার ট্রাইবুনাল গঠন এবং ৩০-৬০ কার্যদিবসের মাঝে বিচার সম্পন্ন করার প্রক্রিয় তৈরী করা, নির্যাতিত নারীর বিনামূল্যে চিকিৎসা এবং পরিবারকে ক্ষতিপূরণ প্রদান করা, জেলায় জেলায় ধর্ষণ প্রতিরোধে পুলিশের আলাদা টাস্কফোর্স গঠন, নির্জন রাস্তায় সচল সিসিটিভি স্থাপন, পূর্ববর্তী সকল ধর্ষণ মামলার রায় ৬ মাসের মাঝে সম্পন্ন করা, দলীয় মদদে কোন ধর্ষণকে বা কোন অপরাধকে আশ্রয় দেওয়া হলে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা। এ দাবি মেনে না নেওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চালিয়ে যাবার ঘোষণা করেন শিক্ষার্থীরা।