সামাজিকসহ সকল অপকর্মের হোতা শফিউল্লাহ শফি!

রিপোর্ট নারায়ণগঞ্জ ২৪ : সামাজিক অপকর্মসহ নানা ধরনের অপকর্মের অভিযোগ উঠেছে সদর উপজেলার ফতুল্লার কাশিপুর ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ড মাদবরবাড়ি এলাকার ফতুল্লা থানা আওয়ামীলীগের সাবেক যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক শফিউল্লাহ শফির বিরুদ্ধে! এছাড়াও নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার ফতুল্লা থানা আওয়ামীলীগের সাবেক যুব ও ক্রীয়া বিষয়ক সম্পাদক শফিউল্লা শফি থানা আওয়ামীলীগের পূর্ণাঙ্গা কমিটিতে ভাল একটি পদ পেতে জোর লবিং করার গুঞ্জন শোনা যাচ্ছে সর্বত্র! কি করে একজন দূর্ধর্ষ জঙ্গির পিতা হয়েও পদ পদবী পাওয়ার জন্য মরিয়া হয়ে উঠেছে প্রশ্ন স্থানীয়দের?

স্থানীয়রা জানান, বিগত সময়ে শফিউল্লাহ শফির বিরুদ্ধে অবৈধ অস্ত্র মজুত, ভূমি দস্যুতা, নারী কেলেংকারী, মাদক ব্যবসায়ীদের শেল্টারদাতা, অবৈধ এসিড, রং কেমিক্যালের ব্যবসাসহ নানা অভিযোগ রয়েছে। গত ২০১৯ সালের নভেম্বর মাসে শফিউল্লাহ শফির পুত্র নিষিদ্ধ জঙ্গি সংগঠন আনসার আল ইসলামের সক্রিয় সদস্য আবু বক্কর সাজনকে র‌্যাব-৩ গ্রেফতার করেছিল। জঙ্গি সংগঠনের সাথে এখনো তার সম্পৃক্ততা থাকতে পারে বলেও ধারণা এলাকাবাসীর। তার অনুসারীরা কাশীপুরে পরিচয় গোপন রেখে তাদের কার্যক্রম চালিয়ে যেতে পারে বলেও ধারণা তাদের।
শফিউল্লাহ শফি ফতুল্লা থানা আওয়ামীলীগের যুব ও ক্রীড়া সম্পাদক পরিচয়ে স্থানীয় এলাকায় আধিপত্য বিস্তার করে আসছে। ক্ষমতাসীন দলের একজন নেতা হওয়ায় বিগত দিনে বিভিন্ন সময়ে শফিউল্লাহ শফি তার অবৈধ অস্ত্র প্রদর্শন করলেও সেই অবৈধ অস্ত্র উদ্ধারে রহস্যজনক কারণে কোন প্রকার উদ্যোগ গ্রহন করেননি আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

সূত্র থেকে জানা যায়, বছর থানেক পূর্বে স্থানীয় এলাকার শামসুদ্দিন সামু নামের এক ব্যাক্তির মাধ্যমে রিকশা যোগে নারায়ণগঞ্জ ক্লাব থেকে মদ কিনে নিয়ে যাওয়ার সময় ডিবি পুলিশ শহরের মিশনপাড়া এলাকা থেকে শামসুদ্দিনন সামু ও ওই রিকশা চাকলককে মদসহ আটক করলে মোটা অংকের টাকার বিনিময়ে তাদেরকে ছাড়িয়ে আনেন শফিউল্লাহ শফি। পরবর্তীতে স্থানীয় এলাকার একজন মাদক ব্যবসায়ীকে দিয়ে ওই রিকশা চালককে তার বাসায় ডেকে এনে তার কাছ থেকে ৩৫হাজার টাকা আদায় করেন। এছাড়াও বিভিন্ন সময়ে তার বাড়িতে রাতের বেলায় নারী, মাদক ব্যবসায়ীদের নিয়ে মদের আসর বসাতেন।

আরো জানা যায়, স্থানীয় এলাকার বিভিন্ন জমির মালিকরা তাদের ক্রয়কৃত জমি কিনে ভূমিদস্যুতা ও হয়রানির স্বীককার হচ্ছেন প্রতিনিয়ত শফিউল্লাহ শফি গংদের দ্বারা! জমির মালিকরা জমি ক্রয় করার পর জমিতে বেজাল সৃষ্টি করে সিন্ডিকেটের মাধ্যমে জিম্মি করে ওই জমি দখল করে নেয় তারা!