নারায়ণগঞ্জকে নিয়ে খেলতে আইসেন না – শামীম ওসমান

রিপোর্ট নারায়ণগঞ্জ ২৪ : নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সাংসদ সদস্য আলহাজ্ব একেএম শামীম ওসমান  বলেছেন, শামীম ওসমানের থাকাবস্থায় তার কর্মীদের আঘাত করে নারায়ণগঞ্জটা শান্ত থাকবে এটা ভাবলে বোকার স্বর্গে বসবাস করা হবে। আমার জীবন থাকতে একটা কর্মীর গায়ে আচড় দিয়ে নারায়ণগঞ্জে এক ঘন্টা কেউ আরামে ঘুমাতে পারবেন না। পরিষ্কার জানিয়ে দিলাম। আশা করি, আমার এই বক্তব্য হালকাভাবে নেওয়ার কোন প্রকার সুযোগ নাই।

শনিবার (৭ ডিসেম্বর) সকাল ১০টায় শুরু হওয়া ফতুল্লার নাসিম ওসমান মেমোরিয়াল পার্কে ফতুল্লা থানা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি।

তিনি বলেন, হকার ইস্যুর ঘটনায় ২২মাস সময় নেয় হলো কেন। কাদের আর কার ইশরায় এই মামলা হলো। রাজনীতি করা ছেলেরা সাধারন গরীব মানুষকে মারার প্রতিবাদ করার কারনে নিয়াজুল সহ আমরা আসামী হলাম। আজকে আমি এখানে বক্তব্য রাখছি মামলার একজন আসামী হিসেবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশ, দল ও দলের নেতাকর্মীদের ভালবাসেন। তিনি অসীম ধৈর্যশীল এটা তার বড় একটি  গুণ। তবে তার আরেকটি বড় গুণ হচ্ছে তিনি নীলকণ্ঠী। সকল বিষ খেয়ে হজম করতে পারেন উনি। আমি অনেক চেষ্টা করছি তবে উনার মত নীলকণ্ঠী হতে পারছিনা। আমরা তো শেখ হাসিনার একজন সাধারণ কর্মী আমরা কতক্ষণ আর হজম করবো। খেলা কিন্তু শুরু হয়ে গেছে। নারায়ণগঞ্জকে নিয়ে খেলতে আইসেন না।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন, নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল হাই, সাধারণ সম্পাদক আবু হাসনাত শহীদ বাদল, জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি মিজানুর রহমান বাচ্চু মহানগর আওয়ামী লীগের সহসভাপতি চন্দন শীল, সাধারণ সম্পাদক এড. খোকন সাহা, ফতুল্লা থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি এম সাইফউল্লাহ বাদল, সাধারণ সম্পাদক শওকত আলী, মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক শাহ্ নিজাম, সাংগঠনিক সম্পাদক জাকিরুল আলম হেলাল, জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক ডা. আবু জাফর চৌধুরী, সাংগঠনিক সম্পাদক ও আড়াইহাজার পৌরসভার মেয়র সুন্দর আলী, মহানগর যুবলীগের সভাপতি শাহাদাত হোসেন সাজনু প্রমুখ।

প্রসঙ্গত, ফুটপাতে হকার বসানোকে কেন্দ্র করে নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী ও তার সমর্থকদের উপর হামলার ঘটনার ২২ মাস ১৮ দিন পর আদালতে মামলা করা হয়েছে। নারায়ণগঞ্জের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ফাহমিদা খাতুনের আদালত অভিযোগটি আমলে নিয়ে সদর মডেল থানাকে আইনগত ব্যবস্থা নিতে নির্দেশ দিয়েছেন।

সিটি মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভীকে হত্যা চেষ্টার অভিযোগ এনে গত বুধবার বিকেলে সিটি কর্পোরেশনের আইন কর্মকর্তা জি এম এ সাত্তার বাদী হয়ে মামলাটি করেন। মামলায় নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সাংসদ একেএম শামীম ওসমানের ৯ সমর্থকের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত আরও ৯শ থেকে ১হাজার জনকে অজ্ঞাত আসামি করা হয়েছে।

উক্ত মামলার এজাহারভুক্ত আসামিরা হলেন, নিয়াজুল, নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক শাহ্ নিজাম, মহানগর যুবলীগের সভাপতি শাহাদাৎ হোসেন সাজনু, মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি জুয়েল হোসেন, মহানগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জাকিরুল আলম হেলাল, যুবলীগ নেতা জানে আলম বিপ্লব, নারায়ণগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান সুজন, যুবলীগ কর্মী নাসির উদ্দিন ওরফে টুন্ডা নাসির, যুবলীগ নেতা চঞ্চল মাহমুদ।