১লা সেপ্টম্বরের আগেই অনেক ষড়যন্ত্র শুরু হবে – এড. আবুল কালাম

রিপোর্ট নারায়ণগঞ্জ ২৪ : নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির সভাপতি ও সাবেক সাংসদ এ্যাড. আবুল কালাম বলেছেন, শত নির্যাতনের পরও দলের নেতাকর্মীরা বিএনপিকে ছেড়ে যায়নি। যত নির্যাতন হচ্ছে বিএনপি ও সহযোগী সংগঠনগুলো বিনা স্বার্থে ততই শক্তিশালী হচ্ছে। তারা শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানকে দেখে নাই, তবুও তার আদর্শে অনুপ্রানীত হয়ে সহযোগী সংগঠনগুলোতে যোগদান করছে।

শনিবার (২৪ আগস্ট) বিকেল ৪ টায় শহরের কালিবাজারস্থ বিএনপির অস্থায়ী কার্যালয়ে দলটির প্রতিষ্ঠা বাষির্কীর প্রস্তুতি মূলক সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি আরো বলেন, আমরা অবাক হয়ে যাচ্ছি বিএনপি’র সহযোগী সংগঠন গুলোকে ১শ ১ সদস্য কমিটি দেওয়ার চিন্তা করেও সেটা ২শ ১ সদস্য বিশিস্ট হওয়ার পরও অনেকেই বাদ পরে যাচ্ছে। যতই দিন যাচ্ছে বিএনপিতে ততই নতুন নেতৃত্ব সৃষ্টি হচ্ছে। আর এটা আওয়ামী লীগ খুব ভাল করেই বুঝতে পারছে। বর্তমান ক্ষমতাশীনদের ভোটার বিহিন রাজনীতির কারনেই এই পরিবেশ সৃষ্টি হচ্ছে। আমরা মনে করি এটাও ক্ষমতাশীনদের বিরুদ্ধে প্রতিবাদেরই একটা অংশ। দেশের জনগণ এখন বিএনপির কথা শুনতে চায়। কারণ তারা জানে দেশের গণতন্ত্র, ভোটাধিকার, বাক স্বাধীনতা ও মানুষের মৌলিক অধিকার ফিরিয়ে আনতে পারে বিএনপি। আর সেটা অবশ্যই বিএনপি করে দেখাবে।

তিনি আরো বলেন, আমরা জানি ১লা সেপ্টম্বরের আগেই অনেক ষড়যন্ত্র শুরু হবে। কারন নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপি সাংগঠনিক ভাবে শক্তিশালী। তাই আমাদেরকে দমাতে দলের অনেক সুবিধাবাদীরা নানা কুটকৌশল অবলম্বন করবে। যেটা করেছিলো দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার জন্মদিন উপলক্ষে গত ১৬ আগস্ট আমাদের মিলাদ ও দোয়া মাহফিলে। তাই আপনাদেরকে আহবান করবো আপনারা সকলেই একটু চোখ কান খোলা রাখবেন। ১লা সেপ্টম্বর বিএনপির ৪১ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে ঢাকা বিভাগীয় সমাবেশ ও র‌্যালী সফল করা পাশাপাশি নারায়ণগঞ্জের কর্মসূচির বিষয় দিক নির্দেশনা প্রদান করেন তিনি। পাশাপাশি উপস্থিত নেতাকর্মীদের ঊক্তব্যের মাধ্যমে পরামর্শ নেন।

নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক এ্যাড. আবু আল ইউসুফ খান টিপুর সঞ্চালনায় প্রস্তুতি মূলক সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন, সহ-সভাপতি ফখরুল ইসলাম মজনু, হাজী নুরু উদ্দিন, আয়সা সাত্তার, সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুস সবুর খান সেন্টু, শওকত হাসেম শকু, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আওলাদ হোসেন, মনিরুল ইসলাম সজল, কোষাধক্ষ মনিরুজামান, মহানগর স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি আবুল কাউছার আশা, সহ-সভাপতি মাকিদ মোস্তাকিম শিপলু, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক জিয়াউর রহমান জিয়া, মহানগর শ্রমিক দলের সদস্য সচিব আলী আজগর, যুগ্ম-আহবায়ক মনির মল্লিক, ফজলুল হক, মহানগর ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক মমিনুর রহমান বাবু, সহ-সভাপতি আলতাব হোসেন ইব্রাহীম, হামিদুর রহমান সুমন, রোমান হোসেন, মহানগর বিএনপি নেতা এ্যাড. রিয়াজুল ইসলাম আজাদ, হাজী ফারুক হোসেন, সোলেমান, আনোয়ার হোসেন আনু, আল-মামুন, মহিবুর রহমান, জাহাঙ্গীর মিয়াজী, লিটন হোসেন, মহানগর ওলামা দলের সভাপতি হাফেজ সিব্বির আহমেদ সহ বিভিন্ন সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।