গ্রেফতার হওয়া চাঁদা দাবিকারী চার ভূয়া সাংবাদিককে ৫ দিনের রিমান্ড চেয়ে আদালতে প্রেরন

রিপোর্ট নারায়ণগঞ্জ ২৪ : নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার ফতুল্লা থানার এক পুলিশ পরিদর্শকের কাছে ২০ হাজার টাকা মাসোহারা দাবীর অভিযোগে  গ্রেফতার হয়েছে চার ভুয়া সাংবাদিকের ৫দিনের রিমান্ড চেয়ে আদালতে প্রেরন করেছে পুলিশ।

সোমবার (১জুলাই)অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে ফতুল্লা মডেল থানায় একটি দায়েরর পর ৫দিনের রিমান্ড আবেদন করে নারায়ণগঞ্জ আদালতে প্রেরন করা হয়। এর আগে গত রবিবার(৩০জুন)ফতুল্লা মডেল থানায় গিয়ে চাঁদা দাবিকালে তাদেরকে গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন, ঢাকার ডগাইর সারুরিয় এলাকার (আব্দুল আউয়ালের বাড়ীর ভাড়াটিয়া) আব্দুল মান্নান মিয়ার ছেলে সেলিম নিজামী (৩৭), ফতুল্লার রসুলপুর এলাকার (আব্দুল রব মোল্লার বাড়ির ভাড়াটিয়া) তাহের উদ্দিনের ছেলে শফিকুল ইসলাম (৩৮), ফতুল্লার নূরবাগ (আনিস মিয়া বাড়ির ভাড়াটিয়া) মৃত আবেদ আরীর ছেলে ইউসুব (২১), ঢাকার ডগাইর সারুলিয়া এলাকার (আব্দুল আউয়ালের বাড়ির ভাড়াটিয়া) আব্দুল মান্নান মিয়ার ছেলে মাসুদ মিয়া (৩৫)।

গ্রেফতারকৃতরা  নিজেদেরকে দৈনিক “গনজাগরণ ও অপরাধের খোঁজে” পত্রিকার সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে ফতুল্লা মডেল থানার পুলিশ পরিদর্শক(নিরস্ত্র) জনাব মোঃ আজিজুল হক এর কাছে প্রতি মাসে ২০ হাজার টাকা করে চাঁদা দাবি করেন। অন্যথায় তারা তাদের পত্রিকার মাধ্যমে লেখালেখি করে বিভিন্ন ধরণের ক্ষতি করার হুমকি দেয় এবং গোপনে ভিডিও ধারণ ও কথা রেকডিং করার চেষ্টা করে।

এক পর্যায়ে ফতুল্লা মডেল থানার পুলিশ পরিদর্শক (নিরস্ত্র) জনাব মোঃ আজিজুল হক এর সন্দেহ হলে তাদের পত্রিকার কাগজপত্র সহ পরিচয়পত্র দেখাতে বললে তারা কোন প্রমাণ সাপেক্ষ কাগজপত্র ও পরিচয়পত্র দেখাতে পারেনি। কথিত সাংবাদিকদের জিজ্ঞাসাবাদের একপর্যায়ে তারা নিজেদেরকে ভূয়া সাংবাদিক বলে স্বীকার করে। অভিযুক্তরা পরস্পর একই উদ্দেশ্যে তাদের ব্যবহৃত মাইক্রোবাস নং- ঢাকা মেট্রো-চ-৫৩-১৬১০ এর গায়ে “অপরাধের খোঁজে” পত্রিকার ষ্টিকার লাগিয়ে সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে প্রতারণাপূর্বক গোপনে ভিডিও ধারণ করে চাঁদা দাবী ও আদায় করে মর্মে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তারা স্বীকার করেন।